রাষ্ট্রপতির সঙ্গে ৫ কূটনীতিকের সাক্ষাতের আবেদনে সাড়া নেই

নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠন নিয়ে আলোচনার জন্য রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের সঙ্গে সাক্ষাতের জন্য পাঁচটি দেশের রাষ্ট্রদূতের আবেদনে সরকার সাড়া দিচ্ছে না। সরকারের উচ্চপর্যায় সূত্রে জানা গেছে, রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতের ব্যাপারে কূটনীতিকদের আবেদনে সরকারের সাড়া দেয়ার সম্ভাবনা ক্ষীণ।

তবে সরকারের তরফে বিদেশী কূটনীতিকদের নির্বাচন কমিশন পুনর্গঠনের ইস্যুতে অগ্রগতি অবহিত করা হবে।
বর্তমান নির্বাচন কমিশনের মেয়াদ ফেব্রুয়ারিতে শেষ হচ্ছে। নতুন নির্বাচন কমিশন গঠনের প্রশ্নে রাষ্ট্রপতি বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের সঙ্গে সংলাপের পর সার্চ কমিটি গঠন করেছেন। এ কমিটি নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে নির্বাচন কমিশনের জন্য নাম সুপারিশ করবে।

ঢাকায় সরকারের একজন উচ্চপর্যায়ের নীতিনির্ধারক বুধবার  নিশ্চিত করেছেন যে, পাঁচজন বিদেশী কূটনীতিক রাষ্ট্রপতির সাক্ষাৎ পাওয়ার জন্য পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে আবেদন করেছেন।

সূত্রমতে, মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া ব্লুম বার্নিকাট, কানাডার হাইকমিশনার বেনয়িট পিয়ারে লাঘামে, ব্রিটিশ হাইকমিশনার আলিসন ব্লেইক, ইউরোপীয় ইউনিয়নের রাষ্ট্রদূত পিয়ারে মায়াদোন ও অস্ট্রেলিয়ার হাইকমিশনার জুলিয়া নিব্লেট।

জানতে চাইলে সরকারের উচ্চপর্যায়ের এক নীতিনির্ধারক বলেন, ‘বেশ কিছুদিন আগেই বিদেশী কূটনীতিকরা রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতের আবেদন করেছেন। তাদের আবেদন গ্রহণ করা হলে ইতিমধ্যে তারা সাক্ষাৎ পেতেন। সত্যি কথা হল, নির্বাচন কমিশন গঠন বাংলাদেশের অভ্যন্তরীণ বিষয়। এটি আমাদের দেশের নিজস্ব প্রক্রিয়ার মাধ্যমে গঠিত হবে। এখানে বিদেশী কূটনীতিকদের করণীয় কিছু নেই। এ বিষয় সম্পর্কে তাদের কোনো কিছু জানার প্রয়োজন হলে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয় বিদেশী কূটনীতিকদের ব্রিফ করে তা জানিয়ে দেবে। রাষ্ট্রপতির সঙ্গে সাক্ষাতের কোনো প্রয়োজন আছে বলে আমার মনে হয় না।’

বিদেশী কূটনীতিকরা বিশেষ করে পশ্চিমা দেশগুলো বরাবরই বাংলাদেশে অবাধ, সুষ্ঠু, অংশগ্রহণমূলক নির্বাচন অনুষ্ঠানের জন্য আহ্বান জানিয়ে আসছে। মার্কিন রাষ্ট্রদূত বার্নিকাট বাংলাদেশে অবস্থানের দু’বছর পূর্তি উপলক্ষে বুধবার এক ফেসবুক লাইভে বলেছেন, ‘বাংলাদেশে কোনো রাজনৈতিক দলকে আমরা সমর্থন করি না। আমরা রাজনৈতিক প্রক্রিয়াকে আরও অংশগ্রহণমূলক করাকে সহযোগিতা করতে সব বাংলাদেশীর সঙ্গে কাজ করি।’

এদিকে ইউরোপীয় ইউনিয়ন বাংলাদেশে আগামী নির্বাচন সুষ্ঠু করতে নির্বাচন কমিশন গঠন প্রক্রিয়াকে তাৎপর্যপূর্ণ বলে মনে করে। এ নিয়ে ঢাকা সফরকালে ইউরোপীয় পার্লামেন্টের একটি প্রতিনিধিদল এবং ডিসেম্বরে ব্রাসেলসে বাংলাদেশ-ইইউ উপকমিটির বৈঠকে আলোচনা করেছে।

ইউরোপীয় ইউনিয়নের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে- অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ ও সবার অংশগ্রহণে নির্বাচন অনুষ্ঠানে সক্ষম নির্বাচন কমিশন গঠন করতে হবে। পশ্চিমা কূটনীতিকরা নির্বাচন কমিশন গঠন ও তার সক্ষমতা বৃদ্ধিতে কারিগরি সহায়তা দেয়ার বিষয়েও বিভিন্ন সময়ে প্রস্তাব রেখেছে।

Spread the love

নিউজটি পড়া হয়েছে : 241 বার

এ বিভাগের অন্যান্য সংবাদ



সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত, ২০১৭ crime-tv.com
শিরোনাম :
★★ শিল্পমন্ত্রীর নামে চাঁদাবাজি, এসআইকে অব্যাহতি ★★ তুরাগ বাসে ছাত্রী ধর্ষণচেষ্টা, প্রতিবাদে অর্ধশতাধিক বাস আটক ★★ প্রতিনিধিদল নিয়ে ভারত গেলেন ওবায়দুল কাদের ★★ বিভিন্ন অপরাধে ৩১টি প্রতিষ্ঠানকে ২ লাখ ৩৭ হাজার টাকা জরিমানা ★★ ‘সিইসির বক্তব্য বিএনপিকে নির্বাচনে আনার কৌশল’ ★★ প্রধান নির্বাচন কমিশনারের পদত্যাগ চাইলেন কাদের সিদ্দিকী ★★ ছেলেকে হত্যা করে মায়ের আত্মহত্যা ★★ নোয়াখালীতে সহস্রাধিক লোক বিএনপি থেকে আ’লীগে যোগদান ★★ ‘মাথায় হাত দিয়ে কথা দেন, নয়তো আমার মৃত্যুর খবর শুনবেন’ ★★ রোহিঙ্গাদের জন্য কক্সবাজারে হাসপাতাল করে দেবে মালয়েশিয়া